গ্রাম্য রেসিপি তাল রুটি

আস-সালামু আলাইকুম, আমাদের আজকের রেসিপি তালের রুটি। রুটি আমরা অনেকেই খেয়ে থাকি কিন্তু এই ভাদ্র মাসে তালের রুটি খাওয়ার আলাদা মজা। ভাদ্র মাস বলতেই আমাদের মনে পড়ে তালের কথা তাল দিয়ে বিভিন্ন খাবার বানানো যায় কিন্তু কিছু এলাকায় এই ভাদ্র মাসের তালের রুটি ছাড়া ভাদ্র মাসটা পরিপূর্ণতা পায় না।

Nov 26, 2023 - 19:00
Dec 25, 2023 - 23:21
 0  151
গ্রাম্য রেসিপি তাল রুটি
গ্রাম্য রেসিপি তাল রুটি

আস-সালামু আলাইকুম, আমাদের আজকের রেসিপি তালের রুটি। রুটি আমরা অনেকেই খেয়ে থাকি কিন্তু এই ভাদ্র মাসে তালের রুটি খাওয়ার আলাদা মজা। ভাদ্র মাস বলতেই আমাদের মনে পড়ে তালের কথা তাল দিয়ে বিভিন্ন খাবার বানানো যায় কিন্তু কিছু এলাকায় এই ভাদ্র মাসের তালের রুটি ছাড়া ভাদ্র মাসটা পরিপূর্ণতা পায় না।


আমরা তাল দিয়ে যতই কিছু খাই না কেন রুটি আমাদের খেতেই হবে। এই তালের রুটি ছোট-বড় সবাই পছন্দ করে। এই তালের রুটির স্বাদটা অমৃত। আজ নিয়ে আসলাম তালের রুটির রেসিপি যা আমাদের কমবেশি প্রত্যেকের প্রিয় খাবার। আর এই তালের রুটি তৈরি করতে যেসব উপাদান লাগে সেগুলো হলো -
তাল, চিনি, চালের আটা, গুড়া দুধ (গরুর দুধ)।


মাত্র চারটি উপাদান দিয়ে তৈরি করবো আমাদের তালের রুটি। প্রথমে আমাদের তাল নিতে হবে তালের মাথাটা ছড়িয়ে নিতে হবে এবং পানি দিয়ে ভালোভাবে তালটি ধুয়ে নিতে হবে। এরপর তাল ভালোভাবে ছিলে নিতে হবে। এরপর তাল ঘষে নিতে হবে তাল ঘষাটা খুব একটা সহজ কাজ না।


তালটা কে হাতে ভালোভাবে মাখতে হবে। তালটা একটু নরম হয়ে গেলে তখন একটি ডালা বা তাল ঘষার জন্য যেগুলো থাকে তাতে তাল ঘেষে নিতে হবে। তালে সামান্য পরিমাণ পানি দিয়ে ভালোকরে মেখে নিলে নরম তাড়াতাড়ি হয় কিন্তু বেশি পানি দেওয়া যাবে না।


এরপর তাল ঘষা হয়ে গেলে নেটের মত কোন পাতলা কাপড় বা জাল দিয়ে তালটি ছেঁকে নিতে হবে যেন কোন আঁশ না থাকে। আঁশ থাকলে রুটিগুলো ছিঁড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। এরপর একটি পাত্রে তাল গরম করতে দেবো।


এরপর এর মধ্যে দিয়ে দেবো পরিমাণ মতো চিনি। আপনারা এখানে গুড়ও ব্যবহার করতে পারেন কিন্তু চিনি দিলে এর ফ্লেভারটা আমার কাছে ভালো মনে হয়। এরপর এর মধ্যে গরুর দুধ দিয়ে দেবো। আপনারা চাইলে এর মধ্যে গুড়া দুধ ব্যবহার করতে পারেন। গুড়া দুধ ব্যবহার করলে খুব বেশি জাল দিতে হবে না।


কিন্তু গরুর দুধ দিলে জ্বাল দিয়ে কমাতে হবে বা ঘনত্বটা বাড়াতে হবে। এরপর তালের যখন একটি বলক চলে আসবে তখন এর মধ্যে দিয়ে দিব চালের আটা চালের আটা একবারে আমরা দেবো না। অল্প অল্প করে দেবো আর মেশাবো এটা একদম নরম হবে না, আবার খুব শক্ত তাও হবে না।


আমরা সাধারণত যেভাবে চালের রুটি তৈরি করি সেভাবে খানেটি তৈরি করে নিতে হবে। এরপর খামির নেমে নেওয়ার আগ মুহূর্ত সামান্য পরিমাণ ভাজা জিরা গুঁড় দিয়ে দিব এবং সামান্য পরিমাণ আস্ত ভাজা জিরে দিয়ে দিব এতে ফ্লেভারটা ভালো আছে।


এরপর তালের রুটির খামির টা হালকা ঠান্ডা করে নেব তারপর ভালোভাবে ডোলে ডোলে মথে নেব খামির মেখে নেওয়া যত ভালো হবে রুটিটাও তত সুন্দর হবে। এরপর আমরা ছোট ছোট লাচি কেটে নেবো তারপর রুটি তৈরি করে নেবো।


সাধারণত চালের রুটি যেমন তৈরি করি তার চেয়ে একটু মোটা তাল রুটিটি তৈরি করে নিতে হবে। কারণ তাল রুটি একটু মোটা খেতে ভালো লাগে। এরপর রুটিগুলো তৈরি হয়ে গেলে একটি তাওয়া নেবো পাওয়াটি চুলার উপর উঠিয়ে দেবো।


এরপর তাওয়াটি পুরোপুরি গরম হয়ে গেলে তাতে রুটি দিয়ে ১৫-১৬ সেকেন্ড সেঁকে নেব আবার উল্টিয়ে দেবো। এভাবে ভালো করে প্রতিটা রুটি সেঁকে
 নেব। এবার তৈরি হয়ে গেল আমাদের তাল রুটি। এটা গরম-গরম খেতেও ভালো লাগে আবার ঠান্ডা হয়ে গেল ভালো লাগে।


আপনারা যে যেমন খেতে পছন্দ করেন। আশা করি আপনাদের ভালো লেগেছে। ধন্যবাদ


Image Credit: Image By freepik

আপনার প্রতিক্রিয়া কি?

like

dislike

love

funny

angry

sad

wow