তরমুজের সিন্ডিকেট: রোজার বাজারে লুটপাটের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হোন

রমজানে তরমুজের দাম অস্বাভাবিকভাবে বেড়েছে। অসাধু ব্যবসায়ীরা তরমুজের বাজারে সিন্ডিকেট তৈরি করে ক্রেতাদেরকে বন্দী করে লুটপাট চালাচ্ছে। এই নিবন্ধে আমরা আলোচনা করবো কিভাবে এই সিন্ডিকেট ভাঙা সম্ভব।

Mar 30, 2024 - 12:00
Mar 30, 2024 - 02:02
 0  28
তরমুজের সিন্ডিকেট: রোজার বাজারে লুটপাটের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হোন
তরমুজের সিন্ডিকেট: রোজার বাজারে লুটপাটের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হোন

তরমুজ অত্যন্ত পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ একটি ফল। শুধু পুষ্টি মানেই নয়, স্বাদেও বাঙ্গালীদের হৃদয়ে জায়গা করে নিয়েছে তরমুজ। গরমে অথবা রোজার দিনে তরমুজ অত্যন্ত প্রয়োজনীয় এবং জনপ্রিয় ফলে পরিণত হয়। কারণ তরমুজ খুব দ্রুত শক্তি যোগানোর কাজ করতে পারে। তরমুজে প্রচুর পানি থাকায় এটি গরমে ঘামের ফলে সৃষ্ট পানি শূন্যতা দ্রুত কাটিয়ে উঠতে দারুন কাজ করে। এছাড়া সোডিয়াম এবং পটাশিয়ামের ভারসাম্য বজায় রাখতে তরমুজের জুড়ি মেলা ভার।


এখন পবিত্র মাহে রমজান চলছে। গরমও দিন দিন বাড়ছে। এই গরমে সারাদিন রোজা থেকে ইফতারিতে কিছুটা তরমুজ হলে রোজাদারদের জন্য তা খুবই উপভোগ্য হয়। এটি যেমন স্বাদেও ভালো তেমনি দ্রুত এনার্জি এবং ইলেক্ট্রোলাইট যোগানেও অত্যন্ত কার্যকরী।


তাই সারাদিন রোজা রেখে যখন একজন রোজাদার ক্লান্ত শ্রান্ত হয়ে পড়েন, সারাদিন গরমে ঘেমে যখন কিছুটা পানি শূন্যতায় ভোগেন তখন ইফতারিতে তরমুজ ইনস্ট্যান্ট এনার্জি বুস্টিং এবং পানি শূন্যতা দূরীকরণে কাজ করে। তাই ইফতারে রোজাদারদের পছন্দের তালিকায় তরমুজ শীর্ষে থাকে বরাবরই।



তরমুজের পুষ্টিমান

তরমুজ পুষ্টিমানের দিক থেকে অনন্য একটি ফল। পুষ্টিমান ভালো বলেই যে ক্যালোরি অনেক বেশি তা কিন্তু নয়! ১০০ গ্রাম তরমুজে থাকে মাত্র ৩০ ক্যালোরি যা অন্যান্য অনেক ফলের তুলনায় অনেক কম। তাই যারা অতিরিক্ত ওজন নিয়ে দুশ্চিন্তায় আছেন এবং কম ক্যালরিযুক্ত খাবার খেতে চান তাদের জন্য তরমুজ হতে পারে একটি চমৎকার সমাধান।


তরমুজ পটাশিয়ামের একটি চমৎকার উৎস। ১০০ গ্রাম তরমুজে রয়েছে প্রায় ১১২ মিলিগ্রাম পটাশিয়াম। যার ফলে সারাদিন রোদে পুড়ে অথবা অতিরিক্ত ঘামের কারণে আপনার শরীরে পটাশিয়ামের ঘাটতি পূরণে তরমুজ অনবদ্য ভূমিকা পালন করতে পারে।


এছাড়া প্রতি ১০০ গ্রাম তরমুজে প্রায় ১৩% ভিটামিন সি রয়েছে যা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে এবং হাড়ের গঠনে অনেক ভালো ভূমিকা রাখে। লাইকোপেন (lycopene), ফ্ল্যাভোনোইডস(flavonoids), ক্যারোটিনয়েডস(carotenoids), ট্রাইটারপেনয়েডস(triterpenoids) এর মত গুরুত্বপূর্ণ এন্টি-অক্সিডেন্ট এর উৎস তরমুজ। তাই তরমুজ পুষ্টি মানে অনন্য একটি ফল।


তরমুজের স্বাস্থ্য উপকারিতা

পুষ্টি মানে অনন্য এই ফলের রয়েছে বিশেষ কিছু স্বাস্থ্য উপকারিতা। তরমুজের স্বাস্থ্য উপকারিতা সম্পর্কে নিজে আলোচনা করা হলো:



১. ডিহাইড্রেশন দূরীকরণে

ডিহাইড্রেশন দূরীকরণে তরমুজের তুলনা মেলা ভার। তরমুজ এমন একটি ফল যার ৯২% পানি আর বাকি ৮% বিভিন্ন উপকারী পুষ্টি উপাদানে ভরপুর। তাই,m ডিহাইড্রেশন এর বিপক্ষে যুদ্ধে তরমুজ এক অসাধারণ যোদ্ধা।



২. পটাশিয়ামের ঘাটতি পূরণে

প্রতি ১০০ গ্রাম তরমুজে রয়েছে ১১২ মিলিগ্রাম পটাশিয়াম। তাই যদি আপনার পটাশিয়াম ডিফিসিয়েন্সি থাকে তবে তরমুজ হতে পারে চমৎকার একটি সলিউশন।


আপনি যদি দিনে ৫০০ গ্রাম করে তরমুজ খান তবে প্রায় ৫৬০ মিলিগ্রাম পটাশিয়াম আপনি শরীরে ইনটেক করতে পারবেন। এবং এতে খুব বেশি ক্যালরিও আপনার শরীরে প্রবেশ করবে না
, প্রায় ১৫০ ক্যালোরির মতো ক্যালরি ইনটেক হবে। তাই পটাশিয়ামের ঘাটতি পূরণে তরমুজের ভূমিকা অনন্য।



৩. ইনফেকশন এবং ক্যান্সারের ঝুঁকি কমাতে

তরমুজের রয়েছে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট যেগুলো ইনফেকশন এবং ক্যান্সারের ঝুঁকি কমাতে দারুন কাজ করে। তরমুজে রয়েছে ফ্ল্যাভোনোইডস (flavonoids), ক্যারোটিনয়েডস(carotenoids), ট্রাইটারপেনয়েডস (triterpenoids) এই অ্যান্টি-অক্সিডেন্টগুলো যা আপনার কোষ রিপেয়ার এর কাজ করে। এই এন্টিঅক্সিডেন্ট গুলো ক্যান্সারের ঝুঁকি কমাতে এবং যেকোনো ধরনের ইনফেকশনের বিরুদ্ধে খুব চমৎকার কাজ করে।


৪. ওজন কমাতে

ওজন কমাতে তরমুজ খুব সুন্দর ভূমিকা রাখে। কারণ তরমুজে রয়েছে অনেক নিম্ন ক্যালরি যার ফলে আপনি অনেক বেশি তরমুজ খেলেও খুব বেশি ক্যালরি ইনটেক হবে না। কিন্তু আপনার পেট ভরে যাবে যার ফলে ক্ষুধার উদ্রেক হবে না। তাই অল্প ক্যালোরিতেই আপনি আপনার ক্ষুধা নিবারণ করতে পারবেন যার ফলে ধীরে ধীরে আপনার ওজন কমতে শুরু করবে।


৫. উচ্চ রক্তচাপ কমাতে

তরমুজ উচ্চ রক্তচাপ কমাতে কাজ করে থাকে। তরমুজে এক ধরনের অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকে যার নাম লাইকোপেন (lycopene)লাইকোপেন উচ্চ রক্তচাপ কমাতে খুবই কার্যকরী একটি উপাদান। তাই আপনি যদি উচ্চ রক্তচাপের পেসেন্ট হয়ে থাকেন তবে নির্দ্বিধায় নিয়মিত তরমুজ খেতে পারেন এটি আপনার উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে সহায়তা করবে।


তরমুজের অনেক পুষ্টিমান ও স্বাস্থ্য উপকারিতা থাকায় এবং খেতে অত্যন্ত সুস্বাদু হওয়ায় এটি খুবই জনপ্রিয় একটি ফল। আর যেহেতু রোজাদারদের জন্য তরমুজ অত্যন্ত উপকারী এবং প্রয়োজনীয় তাই পবিত্র রমজান মাসে এর চাহিদাও বেশি সৃষ্টি হয়। রমজানে তরমুজের ব্যাপক চাহিদাকে মাথায় রেখে একদল অসাধু ব্যবসায়ীরা গড়ে তুলেছে অবৈধ সিন্ডিকেট।


অবৈধ সিন্ডিকেটের বেড়াজালে ক্রেতাদেরকে বন্দী করে অসহনশীল মুনাফা অর্জন করেছে তারা। তরমুজের দাম অসহনীয় হওয়ায় এটি সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষের ক্রয়ক্ষমতার বাইরে চলে গিয়েছে। তাই এই সিন্ডিকেট ভেঙে চুরমার করে দেওয়া এখন অত্যন্ত প্রয়োজনীয়।


তরমুজ ব্যবসাকে কেন্দ্র করে অসাধু লোভী ব্যবসায়ীদের অবৈধ সিন্ডিকেট ভাঙতে হলে করণীয় কি?

তরমুজ ব্যবসার এই অবৈধ সিন্ডিকেট ভাঙতে হলে সরকারের পাশাপাশি সাধারণ মানুষকে সচেতন হতে হবে। সাধারণ মানুষ ঐক্যবদ্ধভাবে যদি কিছুদিন তরমুজ খাওয়া অর্থাৎ তরমুজ ক্রয় করা বন্ধ রাখতে পারেন তবে দুমড়ে-মুচড়ে ভেঙে যাবে অসাধু চক্রের এই সিন্ডিকেট।


কারণ তরমুজ পচনশীল একটি ফল, যদি কিছুদিন আমরা তরমুজ ক্রয় করা বন্ধ রাখি অন্তত সাতদিন বন্ধ রাখলেই অসাধু ব্যবসায়ীদের উচিত শিক্ষা হবে, তাদের ফল পড়তে শুরু করবে এবং তারা কম দামে বিক্রি করতে বাধ্য হবেন। যার ফলে তরমুজের সিন্ডিকেট ভেঙে হবে চুরমার!

আপনার প্রতিক্রিয়া কি?

like

dislike

love

funny

angry

sad

wow

আব্দুস সাদিক কন্টেন্ট রাইটার